নিউজ ডেস্ক :

বরিশালে যৌতুকের দাবিতে মারধর ও তালাকের হুমকি দেয়ার অভিযোগে এক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন তার স্ত্রী।

রোববার দুপুরে বরিশাল মহানগর হাকিম আদালতে মামলাটি করা হয়।

মামলার বিবাদী বরিশাল টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নূর উদ্দিন আহম্মেদ। তার স্ত্রী ও বাদী দীনা খান বরিশালের উজিরপুর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা।

বিকেলে আদালতের বিচারক মো. আনিছুর রহমান শুনানি শেষে নগ‌রীর ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে অভিযোগের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন।

অভিযোগ থাকা অধ্যক্ষ নূর উদ্দিনের বাড়ি টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের নয়াপাড়া গোড়াই এলাকায়।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৯ সালের ২৮ জুলাই নূর উদ্দিনের সঙ্গে বরিশাল নগরীর ব্রাউন কম্পাউন্ড এলাকার দীনা খানের বিয়ে হয়। তাদের দুই মেয়ে সন্তান রয়েছে।

বিয়ের পর বিভিন্ন সময় দীনার অর্থে কেনা জমি ও ফ্ল্যাট নূর উদ্দিন নিজের নামে লিখে নেন। এ ছাড়া বিভিন্ন সময় স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য চাপ দেন। স্ত্রী যৌতুক দিতে না চাইলে তাকে মারধর করে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, গত ১৭ নভেম্বর রাতে দীনার বাবার বাড়িতে এক সালিশ বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে নূর উদ্দিন পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। দীনা টাকা না দেয়ার কথা বললে তালাকের হুমকি দিয়ে নূর উদ্দিন বৈঠক থেকে চলে যান।

তবে যৌতুক দাবি ও মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে নূর উদ্দিন নিউজবাংলাকে জানান, তিনি বাবা-মায়ের একমাত্র ছেলে। বাবা অনেক আগে মারা গেছেন। বৃদ্ধা মা টাঙ্গাইলে গ্রামের বাড়িতে থাকেন। তাকে দেখার কেউ নেই।

তিনি জানান, প্রতি সপ্তাহে বৃদ্ধা মাকে দেখতে তিনি গ্রামের বাড়ি যান। এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্য হয়। সেখান থেকেই তার স্ত্রী হয়তো এই মামলা করেছেন।

তাদের দুই মেয়ে এখন দীনার সঙ্গে আছেন।

  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/বি

Sharing is caring!