মোহাম্মদ সোহেল, নোয়াখালী :
জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাজাকার, খুনি ও পাকবন্ধু বলে অশ্লীল বক্তব্য দেয়ায় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট ওমর ফারুকের করা মামলার চার্জশীট গ্রহণ করেছে নোয়াখালীর জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এবং পলাতক একমাত্র আসামী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেছে আদালত।

নোয়াখালীর অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর দেব প্রিয় চক্রবর্তী জানায়, আগামী ৩১ মার্চ এ মামলার বিচার কাজ শুরু হবে। তাই আদালত মামলার বাদীকে ওইদিন স্বাক্ষ্য দানের জন্য নোটিশ প্রদানেরও আদেশ দিয়েছেন।

তিনি জানান, বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিভিন্ন সময় জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে রাজাকার, খুনি ও পাকবন্ধু বলে বক্তব্য দেয়ায় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সিনিয়র আইনজীবি বিগত ২০১৫ সালে ২৮ ফেব্রুয়ারি নোয়াখালীর জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ২নং আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে চরজব্বর থানাকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিলে থানার সাব ইন্সপেক্টর আনোয়ার হোসেন ভূঞাঁ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্মারক নং-১০০, তারিখ ১৯-২-২০১৫ইং মাধ্যমে অনুমোদন পেয়ে ৪-৪-২০১৭ইং ১২১/১২১(ক)/১২৩(ক) ১২৪(ক) ধারায় আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। অভিযোগ পত্র নং-১৯।

বৃহস্পতিবার এ অভিযোগপত্রের উপর রাষ্ট্র পক্ষের শুনানীর পর আদালত একমাত্র পলাতক আসামী তারেক রহমান, পিতা- জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেন এবং বিচারের জন্য আগামী ৩১ মার্চ ২০২১ তারিখে বাদীর সাক্ষীর দিন ধার্য্য করে বাদীকে নোটিশ করার আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, এ মামলায় নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ খায়রুল আনম চৌধুরী, সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: হানিফ চৌধুরী, সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হোসেন সোহরাওয়ার্দীকে স্বাক্ষী মানা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীতে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসি, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুর রহমান।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/রা

Sharing is caring!