বিনোদন প্রতিবেদক :

চিত্রনায়ক, ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল চলমান ধর্ষণের প্রতিবাদ-আন্দোলন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। সেখানে ধর্ষকদের শাস্তির দাবি করলেও ধর্ষণের জন্য নারীর পোশাককে দায়ী করেছেন তিনি। এরপরেই সেই ভিডিওটি আগে ‘বিতর্ক’ নামটি জুড়ে যায়। এবার সেই ভিডিওটি নিয়ে নিজের অবস্থান জানান দিলেন তিনি।

তিনি বলেন, গতকালের ভিডিওতে আমি মূলত মেয়েদেরকে শালীনতা বজায় রাখার কথা বলেছি। অনেকেই বিষয়টিকে পজিটিভভাবে নিয়েছেন আবার অনেকেই নেগেটিভভাবে নিয়েছেন, আমি কোনো বিতর্কে জড়াতে চাই না। কেউ ভুল বুঝে থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। তাই আমি উক্ত বিষয়টি কারেকশন করে দিলাম।

রোববার সন্ধ্যায় দেয়া এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি এসব কথা বলেন। ওই স্ট্যাটাসের সঙ্গে নতুন আরেকটি ভিডিও যুক্ত করে দেন।

দেশের আলোচিত অভিনেতা অনন্ত জলিল বলেন, নারী-পুরুষ উভয়েই পরিবার ও সমাজের জন্য অনিবার্য। পরিবার টিকিয়ে রাখার জন্য যেমন নারী-পুরুষের সম্মিলিত উদ্যোগ, পরিকল্পনা, ত্যাগ ও সংযমের প্রয়োজন। একজনকে উপেক্ষা করে বা বাদ দিয়ে কেবল পুরুষ কিংবা নারীর পক্ষে বেশিদূর এগোনো সম্ভব নয়। তাই আমরা চাই নারী-পুরুষের সৌহার্দ্যপূর্ণ সমঝোতামূলক সম্পর্ক, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার সম্পর্ক ।

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ধর্ষণ, বিশেষ করে শিশু ধর্ষণ ও ধর্ষণ-পরবর্তী হত্যার মতো ঘৃণ্য অপরাধ বেড়েই চলেছে। এই অপরাধের সঙ্গে জড়িত অপরাধীর দ্রুততম সময়ে বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার বিকল্প কিছু নেই। পরিবারের দায়িত্ব নারীর প্রতি বৈষম্যমূলক দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করা।

  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/রা

Sharing is caring!