মোহাম্মদ সোহেল, নোয়াখালী

দেশ বরেণ্য সাংবাদিক ও দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেছেন, মুক্ত সংস্কৃতির চর্চার মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে দিতে হবে। আজকের দিনটি আমাদের কাছে ঐতিহাসিক দিন। আজকে আমরা স্বল্প উন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে চলে গেছি। বাংলাদেশ আজকে অগ্রগতির বাংলাদেশ, উন্নয়নের বাংলাদেশ।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পাবলিক হল চত্তরে বেগমগঞ্জ লোক সাংস্কৃতিক উৎসব উদযাপন পরিষদের আয়োজনে আয়োজিত লোক সাংস্কৃতিক উৎসব ২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের উদ্বোধক এবং প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন।

শ্যামল দত্ত বলেন, পৃথিবীতে আমরা একমাত্র জাতি, যারা ভাষার জন্য জীবন দিয়েছি। বঙ্গবন্ধু বলতেন যে, আমার প্রাণ শক্তি হচ্ছে দেশের শ্রমিক, কৃষক, মেহনতী মানুষ। শ্রমিকরা যদি আন্দোলনে না নামতো, বাংলাদেশের কোন গণ আন্দোলন হতো না। সেই শ্রমিক ভাইয়ের কন্ঠে যখন শুনছি, দেশটি যে গড়েছেন, তিনি কিন্তু আজ আর নাই।

উন্নয়ন- অগ্রগতিতে দেশ আজ স্বয়ংসম্পূর্ণ। দেশে নারী নেতৃত্ব প্রসারে নারীদের ক্ষমতায়ন হয়েছে। দেশ আজ উন্নয়নশীল হয়েছে। এটি আমাদের জন্য সুখকর বার্তা।

এই বাংলাদেশে লোক উৎসব হচ্ছে। এদেশ হচ্ছে জারি-শারি, মুরশিদি-বাউল, ভাটিয়ালি গানের দেশ। সংস্কৃতি কিন্তু আমাদের রক্তে, দেশের মাটির সাথে মিশে আছে। দেশে মাটির মধ্যে সংস্কৃতির ঘ্রাণ পাওয়া যাবে।

টেকনোলজি আমাদের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে গেছে। এ আধুনিকায়নের যুগে মুক্ত সংস্কৃতির চর্চার মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে দিতে হবে।

উৎসবে লোক সাংস্কৃতিক উৎসব উদযাপন পরিষদের আহবায়ক আবুল ফারাহ্ পলাশের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক ত্রয়ী রায়ের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বেগমগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহনাজ বেগম, চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র খালেদ সাইফুল্লাহ ও বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামসুন নাহার। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, লোক সাংস্কৃতিক উৎসব উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব বেলাল হোসেন।

লোক সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্বোধক শ্যামল দত্ত ও উপস্থিত অতিথিদের উৎসব উদযাপন পরিষদসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে বরণ করা হয়। এসময় ভোরের কাগজ নোয়াখালী পরিবারের পক্ষ থেকে শ্যামল দত্তকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ভোরের কাগজ জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেলসহ জেলার উপজেলা প্রতিনিধিগণ।

চতুর্থ বারের মতো এই ‘লোক সাংস্কৃতিক উৎসব’ কেন্দ্র করে নোয়াখালীর সাংস্কৃতিক অঙ্গন বেশ জমজমাট হয়ে উঠে। এ উৎসব আয়োজনের মধ্য দিয়ে জেলায় শিল্প-সংস্কৃতির সংগঠকদের সম্মিলন ঘটেছে।

লোক সংস্কৃতি উৎসব ২০২১ কিংবদন্তী সংগীত শিল্পী অধ্যাপক মো. হাশেম এবং অধ্যাপক রমানাথ সেনের স্মৃতির প্রতি উৎসর্গ করায় এটিকে ‘অনুকরণীয়’ মন্তব্য করে উৎসবের বক্তারা বলেন, এর মধ্য দিয়ে কৃষ্টি ও সংস্কৃতির শেকড়ের সন্ধানে অন্যেরাও ব্রতী হবার অনুপ্রেরণা পাবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর চ্যানেল আই সেরা শিল্পী বাউল শারমিন আক্তার, বিশ্বভুবনের শিল্পীসহ জেলার বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের লোকশিল্পীরা নিজ নিজ নৃত্য-গীতি পরিবেশন করে উপস্থিত অতিথি ও দর্শকদের মাতিয়ে তোলেন।

  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/রা

Sharing is caring!