আন্তজার্তিক ডেস্ক :

এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের ১৫টি দেশে মিলে একটি বৃহত্তম বাণিজ্যিক জোট গঠন করা হয়েছে। তবে এর মধ্যে নেই যুক্তরাষ্ট্র। রোববার দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর জোট আসিয়ানের এক ভার্চ্যুয়াল সম্মেলনের ফাঁকে সই হয়েছে বহুল প্রত্যাশিত আঞ্চলিক সমন্বিত অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব (আরসিইপি) চুক্তি। মুক্তবাণিজ্যের প্রসারে আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই বিভিন্ন খাতের শুল্ক কমাবে জোটভুক্ত দেশগুলো। এটি বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্রের জন্য বড় আঘাত এবং চীনের অর্থনৈতিক প্রতিপত্তি আরও বৃদ্ধি করবে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

প্রায় আট বছর আগে শুরু হয়েছিল আরসিইপি জোট গঠনের আলোচনা। শুরুর দিকে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আগ্রহে যুক্তরাষ্ট্রও ছিল এর সঙ্গে। তবে ২০১৭ সালে এটি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন তার উত্তরসূরী ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওবামার নেতৃত্বে হওয়া ট্রান্স-প্যাসিফিক পার্টনারশিপও (টিপিপি) তার কারণে একপ্রচার অচল।

অর্থনৈতিক সেবা বিষয়ক সংস্থা আইএনজির বৃহত্তর চীন অঞ্চলের শীর্ষ অর্থনীতিবদ আইরিস প্যাং বলেন, বিদেশি বাজার ও প্রযুক্তির ওপর চীনের নির্ভরশীলতা অনেকটাই কমিয়ে দিতে পারে আরসিইপি।এই জোটের সদস্য হিসেবে যুক্ত হচ্ছে আসিয়ানভুক্ত ১০টি দেশ- ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, লাওস, কম্বোডিয়া, মিয়ানমার, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, ব্রুনেই। এর সঙ্গে রয়েছে চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/দু

Sharing is caring!