সংলাপ ডেস্ক :

সামাজিক যোগাযোগের আরেক অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে হোয়াটস অ্যাপ। আর আপনার সেই হোয়াটস অ্যাপের মূল্যবান তথ্যই যদি কিছু অসাধু চক্রের হাতে চলে যায়, তখন আপনার নিরাপত্তাহীনতায় ভোগাটাই স্বাভাবিক।

সম্প্রতি এক অসাধু চক্র এমনই এক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। তারা আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে মূল্যবান তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে। শুধু তাই নয় আপনি সম্প্রতি যাদের সাথে যোগাযোগ করেছেন তাদের হোয়াটস অ্যাপ অ্যাকাউন্টও হ্যাক করার চেস্টা করছে।

চক্রটি একটি এসএমএসের মাধ্যমে একটি লিঙ্ক ও ৬ ডিজিটের একটি কোড পাঠাচ্ছে। আপনি যদি দেই লিঙ্কে ক্লিক করেন তাহলেই আপনি সেই ফাঁদে পা দিয়ে ফেললেন। শুধু তাই নয়, চক্রটি আপনার কোন এক হোয়াটস অ্যাপ বন্ধুর মাধ্যমে আপনার হোয়াটস অ্যাপে একটি মেসেজ পাঠাবে। আর সেই মেসেজে লেখা থাকবে ‘হ্যালো আমি দুঃখিত, আমি ভুল করে আপনাকে এসএমএস দিয়ে একটি ৬-সংখ্যার কোড পাঠিয়েছি। আপনি এটা আমার কাছে স্থানান্তর করতে পারেন? এটা জরুরি।’

আপনি হয়তো আপনার বন্ধুকে বিশ্বাস করে এসএমএসে আসা সেই কোডটি আপনার বন্ধুর হোয়াটস অ্যাপে পাঠিয়ে দিবেন। তাহলেই হয়ে গেলো হ্যাক! আপনি পড়ে গেলেন ফাঁদে। সাথে সাথেই সেই অসাধু চক্র আপনার হোয়াটস অ্যাপে ঢুকে পড়বে। তখন আপনি আর ঢুকতে পারবেন না। তারপর সেই চক্রটি আপনার মূল্যবান তথ্য নিয়ে আপনার ক্ষতি করতে পারে। আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে আপনার বাকি বন্ধুদেরও একইভাবে কোড এসএমএস করে পাঠাবে এবং হোয়াটস অ্যাপে কোড চেয়ে মেসেজ দিবে। আপনার বন্ধুদের কল করবে, আপনার হয়ে আপত্তিকর কোন কিছুও পাঠাতে পারে। আর তাতেই তাদের উদ্দেশ্য হাসিল।

সম্প্রতি এই চক্রের শিকার হন মাল্টিন্যাশনাল কম্পানিতে চাকরিরত তাইজুল ইসলাম। তিনি না বুঝেই তার সহকর্মীর পাঠানো কোডটির স্ক্রিনশট তার সহকর্মীকে হোয়াটস অ্যাপে পাঠান। তিনি জানতেন না যে পর্দার আড়ালে তার সহকর্মীর মুখোশে তার জন্য ফাঁদ পেতে বসে আছে সেই অসাধু চক্র। সাথে সাথেই তার হোয়াটস অ্যাপ অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হয়ে যায়।

ভুক্তভোগী তাইজুল বলেন, তার বস তার হোয়াটস অ্যাপ থেকে একটি মেসেজ পেয়ে তাকে জানান যে উনি অদ্ভুত একটি মেসেজ পেয়েছেন। তথ্য প্রযুক্তির ফাঁদের ব্যাপারে সচেতন থাকায় তিনি সন্দেহ করেন যে হয়তো তাইজুলের হোয়াটস অ্যাপ হ্যাক হয়েছে। তাইজুলকে জানালে পরে তিনি বহুবার চেষ্টা করেও আর তার অ্যাকাউন্টে ঢুকতে পারেননি। এরই মধ্যে তাইজুলের অ্যাকাউন্ট থেকে মেসেজ পান তার বন্ধু ফারাহ দিবা। তিনিও একই ফাঁদে পা দিয়ে তার হোয়াটস অ্যাপ অ্যাকাউন্টটি হ্যাকারদের হাতে তুলে দেন।

  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/স

Sharing is caring!