ক্রীড়া ডেস্ক :

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বাংলাদেশে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। ২৩ সদস্যের দলে জায়গা হয়নি অজিদের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মারনাস ল্যাবুশেইনের।

গ্ল্যামরগানের হয়ে ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলছেন ল্যাবুশেইন। সেখান থেকে দলে যোগ দিতে হলে কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশনের বিধিনিষেধের ভেতর দিয়ে যেতে হবে। এছাড়া ইংল্যান্ড থেকে উইন্ডিজের ফ্লাইটেও আছে কড়াকড়ি। সবমিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচক ট্রেভর হনস সোমবার জানান ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলাই হবে ল্যাবুশেইনের জন্য সেরা সমাধান।

‘আমরা বৈশ্বিক মহামারির ভেতরে না থাকলে মারনাস অবশ্যই এই সফরের দলে থাকত। বিশ্বে সবাই যে ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে সেটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। মারনাসের সামনে সুযোগ আছে বিশ্বকাপ ও অস্ট্রেলিয়ার হোম সিরিজের আগে গ্ল্যামরগানের হয়ে কাউন্টি ক্রিকেট ও টি-টোয়েন্টি খেলার।’

৯ জুলাই শুরু হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। সেইন্ট লুসিয়ায় হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলো আর বার্বেডোসে হবে তিনটি ওয়ানডে। এরপর অস্ট্রেলিয়ার আসার কথা বাংলাদেশে।

অস্ট্রেলিয়ার হেড অফ ন্যাশনাল টিমস বেন অলিভার জানান বাংলাদেশ সফরের সূচি নিয়ে আলোচনা এখনও চলছে।

এর আগে, এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে বিসিবির ক্রিকেটার অপারেশনসের প্রধান আকরাম খান জানান জুলাই-আগস্টে বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া।

‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ শেষ করে জুলাইয়ের শেষে কিংবা আগস্টের শুরুতে বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড আসবে তাদের পর।’

আকরাম আরও জানান ক্রিকেট বোর্ড চেষ্টা করছে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাড়তি দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে। তেমনটা হলে দুই দলের মধ্যে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি উপভোগ করতে পারবেন ক্রিকেট ভক্তরা।

দুই ট্রান্স-তাসমান দেশ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরে আসার কথা বিশ্বকাপের আগে। পুরনো সূচি অনুযায়ী নিউজিল্যান্ডের আগে আসার কথা ছিল বাংলাদেশে। টাইগারদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার কথা ব্ল্যাক ক্যাপদের।

তাদের পর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলতে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তবে, নতুন সূচিতে অস্ট্রেলিয়া আসছে আগে। ফলে, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু হচ্ছে ক্রিকেটের হেভিওয়েটদের বিপক্ষেই।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/দু

Sharing is caring!