মোহাম্মদ সোহেল, নোয়াখালী :
নোয়াখালীতে করোনার প্রকোপ না কমায় ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় চলমান বিশেষ লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়েছে জেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিকেলে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। জেলা প্রশাসক ও করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রথম ধাপে ৬ জুন থেকে ১২ জুন পর্যন্ত নোয়াখালী পৌরসভা ও সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে সাতদিন লকডাউন ঘোষণা করা হয়। করোনার প্রকোপ না কমায় চলমান এ লকডাউন দ্বিতীয় দফায় ১৮ জুন পর্যন্ত আরও সাতদিন বর্ধিত করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় আগামী ২৫ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত এ লকডাউন কার্যকর থাকবে। একই সঙ্গে আগের সব বিধিনিষেধ বহাল থাকবে।

তিনি আরও জানান, লকডাউনকে আরো কার্যকর করতে বন্ধ থাকবে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চলাচল। এরআগে গত ৫ জুন এবং ১০ জুন জেলা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান সকাল ৬টা থেকে দুই ধাপে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪ দিন লকডাউন ঘোষণা করেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নোয়াখালীতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে সদর উপজেলা ও বেগমগঞ্জে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৯ জনে। মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৯ শতাংশ। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে আরও ১০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৩৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় এ ফল পাওয়া যায়। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ২৫ দশমিক ৭০ শতাংশ। এতে জেলায় মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দশ হাজার ১২ জন। মোট আক্রান্তের হার ১০ দশমিক ৭০ শতাংশ। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৬০ জন সদর উপজেলার, বেগমগঞ্জের ১৫ জন, সোনাইমুড়ীর ৭জন, চাটখিলের ২ জন, সেনবাগ ৫ জন, কোম্পানীগঞ্জের ৮ জন ও কবিরহাটের ৪ জন রয়েছেন। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ৭ হাজার ১৫৯ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭১ দশমিক ৫০ শতাংশ।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/স

Sharing is caring!