নোয়াখালী প্রতিনিধি :
নোয়াখালীর সদর, কোম্পানীগঞ্জ, সেনবাগ, চাটখিল, সোনাইমুড়ী ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষা থেকে ঝরে পড়া ১২ হাজার ৬০০ শিক্ষার্থী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর  “আউট অব স্কুল চিলড্রেন শিক্ষা কর্মসূচি (পিইডিপি-৪, সাব কম্পোনেন্ট ২.৫ )” এর আওতায় উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আওতায় এসেছে।
সোমবার (১০ জানুয়ারি)  দুপুরে সদর উপজেলার দাদপুর ইউনিয়নের কৃপালপুর গ্রামের রহিম বক্স বেপারী বাড়িতে সদর উপজেলার ৭০টি শিখন কেন্দ্র আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়। কেন্দ্র উদ্বোধনের পরই শিক্ষকদের মাঝে নিয়োগপত্র ও শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বইসহ অন্যান্য শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়।
শিখন কেন্দ্র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক বিদ্যুৎ রায় বর্মনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবু বক্কর সিদ্দিক, প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা এন-রাশ এর চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ, প্রধান নিবার্হী মো: আবুল হাসেম, ভোরের কাগজ নোয়াখালী প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেল,  এন-রাশ জেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো: একরাম হোসেন হৃদয়, প্রোগ্রাম হেড আকলিমা বেগম, সিনিয়র প্রোগ্রাম হেড এনতাজ উদ্দিন, উপজেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার হাসানুল হক প্রমূখ।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, এ প্রকল্প গ্রহণ করায় 
মধ্যদিয়ে ৮-১৪ বয়সি বিদ্যালয় বহির্ভূত ,ঝরে পড়া ও বিদ্যালয়ে ভর্তি না হওয়া শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষার আওতায় এসেছে। 
 
দ্বিতীয় বার সুযোগ পাওয়া এবং আনুষ্ঠানিক শিক্ষার মূলধারায় নিয়ে আসা এসব শিশুদের নিয়ে সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে। এ প্রকল্প শেষে এদেরকে  সরকার কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত করবে এবং কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে।
  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/স

Sharing is caring!