নিজস্ব প্রতিবেদক :

বাংলাদেশের আকাশে কোথাও ১৪৪১ হিজরি সনের শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তাই আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৩ মে) ৩০ রমজান পূর্ণ হবে। আর শুক্রবার (১৪ মে) সারা দেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। বুধবার (১২ মে) সন্ধ্যায় বায়তুল মোকাররমের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৈঠক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানায়, দেশের সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী দেশের কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। সে হিসাবে রমজান ৩০টি রোজা পূর্ণ করে আগামী ১৪ মে শুক্রবার ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

এদিকে গতকাল মঙ্গলবার (১১ মে) পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ঈদ উদযাপন করা হবে। নিয়ম অনুযায়ী, ২৯ রমজানে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে পরদিন ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হয়। কিন্তু এ দিন চাঁদ দেখা না গেলে রোজা ৩০টি পালন করতে হয়। এবং ৩০ রোজার পরদিন ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হয়।

সাধারণত সৌদি আরবের একদিন পর বাংলাদেশে চাঁদ দেখা যায়। এ বছর বাংলাদেশে রমজানও শুরু হয়েছিল সৌদি আরবের একদিন পর।

মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে বর্তমানে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। বাংলাদেশও এ মুহুর্তে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করছে। তারই অংশ হিসেবে গত ১৪ এপ্রিল থেকে দ্বিতীয়বারের মতো সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। কয়েক দফায় এই বিধিনিষেধ আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়। একই কারণে দেশের সব মসজিদে জামাতে নামাজের উপরও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী, মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে গতবারের মতো এবারো ঈদগাহ অথবা খোলা জায়গায় ঈদ জামাতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রত্যেক মসজিদেই একাধিক ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সুরক্ষার ব্যবস্থা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বেশ কিছু শর্ত দিয়ে গত ২৬ এপ্রিল ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়, এ সব নির্দেশনা না মানলে ‘আইনগত ব্যবস্থা’ নেয়া হবে।

জানা যায়, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, এবার রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ ও দুই সিটি কর্পোরেশনের অধীনে কোনো খোলা জায়গা বা মাঠে ঈদ জামাত হচ্ছে না। একই কারণে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠেও ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। রাজধানীতে এবার ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে সকাল ৭টায়। এরপর আরো চারটি জামাত হবে সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা এবং পৌনে ১১টায়। এছাড়া রাজধানীর বিভিন্ন মসজিদে একাধিক জামাতের ব্যাবস্থা রাখা হয়েছে।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/রা

Sharing is caring!