মোহাম্মদ সোহেল, প্রতিনিধি সম্মেলন (গাজীপুর) থেকে:
দেশ বরেণ্য সাংবাদিক দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেছেন, মহামারি করোনার সাথে যুদ্ধ করতে করতে আমরা অত্যান্ত দুঃসময় পার করছি। করোনা যুদ্ধের মধ্যে আমাদের জীবন-যাপন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। করোনার এই দুঃসময়ে বর্তমান সরকার দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখে উন্নয়নের রোল মডেলের দিকে এগিয়ে চলছে। দেশে উন্নয়নের দৃশ্যমান পরিবর্তন ঘটছে। সব সংকট পিছনে পেলে এই পরিবর্তিত বাংলাদেশে আমাদের নতুন করে ঘুরে দাঁড়াতে হবে।
সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) গাজীপুর সদর উপজেলার ভবানীপুর রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট লিমিটেডে ভোরের কাগজ জেলা প্রতিনিধি সম্মেলন-২০২১ এর প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
শ্যামল দত্ত বর্তমান সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, আমাদের সিস্টেমের সমস্যা থাকতে পারে, কিন্তু সরকার দেশের সর্বাত্বক উন্নয়নে কাজ করছে। করোনা মহামারির মধ্যেও গ্রামীণ অর্থনীতির আমুল পরিবর্তন হয়েছে। শিল্প ও  কৃষিতে আমাদের সফলতা এসেছে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমার পেছনে পড়ে থাকার সুযোগ নেই।  আমাদেরকে সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে।
প্রিন্ট মিডিয়ার সংকটের কথা তুলে ধরে ভোরের কাগজ সম্পাদক বলেন, তথ্য-প্রযুক্তির অনলাইনের যুগে সংবাদমাধ্যম স্যোসাল মিডিয়া, ইলেক্ট্রনিক্স ও অনলাইন মিডিয়ার দখলে চলে যাচ্ছে।  মানুষ এখন অনলাইন নির্ভর হয়ে যাচ্ছে। আধুনিকতার ছোঁয়ায় ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়েছে প্রিন্ট মিডিয়া। আমাদের এখন আর প্রথাগত প্রিন্ট মিডিয়ার মধ্যে থাকলে চলবেনা। দেশ ও জনগনের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সংবাদ পরিবেশন এবং যুগোপযোগী প্রন্থা অবলম্বন করে প্রিন্ট পত্রিকার প্রতি পাঠকের আস্থা বাড়াতে হবে।
শ্যামল দত্ত বলেন, আমাদের সংকট আছে, সংকট থাকবে। এসব সংকটের মধ্যেও ভোরের কাগজ প্রকাশনা থেমে নেই। আমরা সব সমস্যা মোকাবেলা করে প্রতিদিন পাঠকের হাতে ভোরের কাগজ পত্রিকা পৌঁছে দিচ্ছি। শুধু প্রিন্ট ভার্ষন নয়, ভোরের কাগজ অনলাইনও পাঠকের চাহিদা মতো সংবাদের যোগান দিচ্ছে । ভোরের কাগজের স্বমহিমায় পথচলায় ভোরের কাগজ পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের অবদান স্বীকার করেন তিনি।
সম্মেলনের শুরুতেই করোনাকালীন সময়ে ভোরের কাগজ পরিবারের অফিসের ৫জন এবং ১০জন জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধির মৃত্যুতে নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,  ভোরের কাগজের বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাপক এসএমএ রাজ্জাক, মফস্বল সম্পাদক আবদুল মোতালেব, প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক সুজন নন্দী মজুমদার, আইটি ইনচার্জ মেহেদী হাসান নিয়াজ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি নাসির উদ্দিন জজ।
প্রতিনিধিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কাগজ প্রতিবেদক সাইদুর রহমান, হেলাল উদ্দিন, তৈয়বুর রহমান, কামাল হোসেন, এম নজরুল ইসলাম, সালেহ এলাহী কুটির, জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেল, সৈয়দুল কাদের, মশিউর রহমান খোকন, মংসানু মারমা, তালুকদার আবদুল বাকী,  ইমাম হোসেন নাহিদ, এমকে রানা, তানজিন আহমেদ অনতু রেজা, মোহাম্মদ আবু তাহের, গৌতম সরকার শভ, এসএম শাখাওয়াত জামান দোলন।
এরআগে রোববার বিকালে দেশের ৬৪ জেলা থেকে কাগজ প্রতিবেদক ও জেলা প্রতিনিধিগণ সম্মেলনে যোগ দিতে রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্টে আসেন। রিসোর্টে আসার পর সম্মেলনের রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করে যোগ দেন আনন্দ-উল্লাসে। রাতভর আড্ডায় চলে হাঁসি আর গান। অঞ্চলবেধে প্রাধান্য পায় আঞ্চলিক গান আর কৌতুক। সোমবার সকালে চলে রিসোর্টের সৌন্দর্য উপভোগ। এরপর দিনব্যাপী সম্মেলনে ব্যক্ত হয় দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে সত্য সংবাদ তুলে আনার প্রত্যয়।
  • সংবাদ সংলাপ/এসইউ/রা

Sharing is caring!