মোহাম্মদ সোহেল, নোয়াখালী :
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ১৩২টি কেন্দ্রে প্রাপ্ত ফলাফলে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত নৌকার প্রার্থী ৬টিতে এবং স্বতন্ত্র নির্বাচন করে ৮ প্রার্থী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের মধ্যে ১নং আমানউল্যাপুর ইউনিয়নে বিএনপি নেতা মো.বাহারুল আলম সুমন কারগারে থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। এরআগে বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনার মধ্য দিয়ে ২টি ইউনিয়নে ইভিএম ও ১২টি ইউনিয়নে ব্যালটে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার সকালে নির্বাচনের ফলাফলের তথ্য নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রাহাত তানভীর চৌধুরী।

নির্বাচন কার্যালয়ের তথ্যমতে, উপজেলার বেগমগঞ্জ ও নরোত্তমপুর ইউনিয়নে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। যারমধ্যে নরোত্তমপুরে ৩১৪৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী মো. মেহেদী হাসান, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকের প্রার্থী মো. হারুন পেয়েছেন ২৯২৪ ভোট। বেগমগঞ্জে চশমা প্রতীক নিয়ে মো. শাইদুর রহমান ৪১১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রার্থী ফিরোজ আলম পেয়েছেন ২৬১৩ ভোট।

ব্যালটে ভোট হওয়া আমান উল্যাহপুর ইউনিয়নে ৩১০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী মো. বাহারুল আলম, ২৮৯১ ভোট পেয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হয়েছেন মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী নুরুল হুদা। আলাইয়াপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মো. গিয়াস উদ্দিন পাটোয়ারী ৭৬০৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চশমা প্রতীকে প্রার্থী আলা উদ্দিন পেয়েছেন ৩২২১ ভোট।

গোপালপুর ইউনিয়নে চশমা প্রতীকের প্রার্থী মোশারেফ হোসেন ৩৩৯৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, ৩০৭১ ভোট পেয়ে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন মোটরসাইকেল প্রার্থী মনির হোসেন পাটোয়ারী। রাজগঞ্জে নৌকার প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান ১০হাজার ৯২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রার্থী মাসুদ আলম ৭২৫০ ভোট পেয়েছেন। একলাশপুর ইউনিয়নে ৭২৫৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন সাইদুর রহমান দিপু, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খলিলুর রহমান পেয়েছেন ৭১৪৫ ভোট। ছয়ানীতে আনারস প্রতীকের প্রার্থী ওহিদুজ্জামান ওহিদ ৬৪১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নৌকার প্রার্থী শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৩৮৬৫ ভোট। দূর্গাপুরে নৌকার প্রার্থী আবেদ সাইফুল কালাম ৫২৯৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চশমার প্রার্থী জহির রায়হান পেয়েছেন ৪০৩৬ ভোট। কাদিপুরে নৌকার প্রার্থী সালাহ উদ্দিন ৫৮৭৯ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন, ৪৫৮২ ভোট পেয়েছেন নিকটতম টেলিফোন প্রার্থী নূর নবী। কুতুবপুরে টেলিফোন প্রতীক নিয়ে ৩৫৮৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন কামাল হোসেন, ২৯৭৫ ভোট পেয়েছেন নৌকার প্রার্থী নুরুল হুদা। হাজিপুরে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী শাহ মো. আজিম মির্জা তার প্রাপ্ত ভোট ৫৫১৭, নিকটতম প্রার্থী আনারসের জি এম জামাল উদ্দিন ৩৭৭১ ভোট পেয়েছেন। রসুলপুরে টেলিফোন প্রার্থী আব্দুর রশিদ ৫৩৭০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নৌকার প্রার্থী নুরুল হোসেন পেয়েছেন ৪৪৪৬ ভোট। শরীফপুর ইউনিয়নে চশমা প্রার্থী নোমান ছিদ্দিকি ৩৯৫৩ ভোট পেয়ে জয়ী এবং নৌকার প্রার্থী আমিনুর রসুল পেয়েছেন ৩১০৯ ভোট।

এদিকে, বেগমগঞ্জ উপজেলার ১নং আমানউল্যাপুর ইউনিয়নে বিএনপি নেতা মো.বাহারুল আলম সুমন কারগারে থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। ২১৫ ভোটের ব্যবধানে তিনি জয়ী হন। তিনি ওই ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলার মামলায় গত ১৫দিন আগে তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গ্রেফতার করে নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করে। এরপর আদালতের বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পরে অনুসারীরা তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যান। এরপর আদালতে জামিনের আবেদন করা হলেও আদালত তা নামঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে একযোগে শুরু হওয়া এ ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ১৪টি ইউনিয়নে নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। ১৪টি ইউনিয়নে ১লাখ ৫২হাজার ৩৪৮জন নারী ও ১লাখ ৭১হাজার ৮৩১জন পুরুষসহ মোট ৩লাখ ২৪হাজার ১৭৯জন ভোটার তাদের ভোটার ছিলেন।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/রা

Sharing is caring!