মোহাম্মদ সোহেল, নোয়াখালী :
নোয়াখালীর সকল উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের নবগঠিত আহবায়ক কমিটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত সভায় জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের প্রায় ৫হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার (২০ নভেম্বর) সকালে নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে এ প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক অধ্যক্ষ খায়রুল আনম সেলিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বপন এমপি বলেন, বিএনপির অনেক আইনজীবি আছেন তারা আদালতে দারস্থ হতে পারেন। দেশের আইন সবার জন্য সমান, আদালত সম্পূর্ণ স্বাধীন। আদালত যদি নির্দেশনা দেয় সরকার একশত বার বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাবে, কিন্তু আইন তা পারমিট করে না। উনার অসুস্থতাকে নিয়ে রাজনীতি করছেন। বেগম জিয়ার মুক্তি অথবা চিকিৎসা চান না বিএনপি। বিএনপি বরং বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে।

তিনি আরও বলেন, আইন সবার জন্য সমান, তারপরও সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সিনিয়র সিটিজেন ও একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে বেগম জিয়াকে একজন কাজের বুয়াসহ কারাগারে থাকার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল। এখন তারা রাতে বেলা আমাদের কাছে এসে মানবিক আবেদন করছেন। সংসদের নেত্রীর কাছে মানবিক আবেদন করছেন, আবার তারাই রাজপথে নেত্রীর বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। মানবিকতা কাকে বলে সেটা কি বিএনপির কাছে নেত্রী বা আওয়ামী লীগকে শিখতে হবে?।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক এ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন ও শহিদ উল্যাহ খান সোহেলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, অর্থ পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশিদ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বেগম ফরিদুন্নাহার লাইলী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ।

প্রতিনিধি সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-১ আসনের সাংসদ এইচএম ইব্রাহিম, নোয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরণ, নোয়াখালী-৬ আসনের সাংসদ আয়েশা ফেরদৌস, ৩৩ মহিলা সংরক্ষিত আসনের সদস্য বেগম ফরিদা খানম এমপি, হাতিয়া আসনের সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারি মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. এবি এম জাফর উল্যাহ’সহ অনেকে।

সভায় বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ গত ইউনিয়ন নির্বাচনসহ দলীয় নেতাকর্মীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে বক্তব্য দেন। নির্বাচনে দলের প্রার্থী নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে কাজ করা নেতাকর্মীদের তালিকা তৈরি করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলার শীর্ষ নেতাদের প্রতি অনুরোধ জানান।

  • সংবাদ সংলাপ/এমএস/রা

Sharing is caring!